বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:৫৫ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়ায় নববধূকে চিকিৎসার নামে ধর্ষণের অভিযোগ কবিরাজের বিরুদ্ধে ।

মতিয়ার রহমান / ১৯৭ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২১, ৭:২৪ পূর্বাহ্ন

কুষ্টিয়ায় নববধূকে চিকিৎসা করার নামে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে সিরাজুল ইসলাম (৪৪) নামের এক ভন্ড কবিরাজের বিরুদ্ধে।

ঘটনাটি ঘটেছে গত ০৪/০১/২০২১ ইং তারিখ রাত ৮ টায় কুষ্টিয়ার ইবি থানাধীন ১১ নং আব্দালপুর ইউনিয়নের চৌড়পাড়ায়।

ভন্ড কবিরাজ সিরাজুল ইসলাম ১১ নং আব্দালপুর ইউনিয়নের চৌড়পাড়ার মৃত আজিবর ব্যাঙের ছেলে।

ঘটনায় জানা যায় গত ৫ মাস আগে ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকুন্ডু থানার রঘুনাথপুর ইউনিয়নের সোহাগপুর গ্রামের বর্ষা (ছদ্দনাম) (১৬) বছর বয়সী এক কিশোরীর বিয়ে হয় একই থানার শিমুল নামে এক যুবকের সাথে। বিয়ের পরদিন থেকেই ওই নববধূর নানা মানসিক সমস্যা দেখা দেয়। সেই মানসিক সমস্যা সমাধানে ভৌতিক কারণ দেখিয়ে নববধূকে তার বোন বিপাশার শশুর বাড়ির পাশে ওই ভন্ড কবিরাজ সিরাজুল ইসলাম এর কাছে ঝাড়ফুঁক করানোর জন্য নিয়ে যায়। ঝাড়ফুঁকের নামে একটানা ১৪ দিন এশার নামাজের পর একটি মোমবাতি জ্বালিয়ে সেটি না নেভা পর্যন্ত তাকে তার বিশেষ চিকিৎসা গৃহে ঝাড়ফুঁকের নামে শ্লীলতাহানি করে আসছে। অবশেষে গত ০৪/০১/২০২১ ইং তারিখ রাত ৮ টায় তার বোন বিপাকে বাসা থেকে লবন পরা আনতে পাঠিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে ওই নববধূকে।

ঘটনার আধাঘন্টা পর তার বোন লবণ পরা নিয়ে ফিরে আসলে ওই নববধূকে কান্নারত অবস্থায় দেখতে পান। সেখান থেকে তার বোন কান্নার কারণ জানতে চাইলে তাকে কোনো কিছু না বলে তার সাথে বাড়িতে চলে আসে। রাতে কান্নায় ভেঙে পড়লে তখন ওই কিশোরী তার বোনকে বিষয়টি খুলে বলে এবং এই ধর্ষণের বিষয়টি কাউকে বললে তার বোনের ছোট্ট শিশুকে তার কবিরাজির মাধ্যমে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয় ওই ভন্ড কবিরাজ। বিষয়টি রাতারাতি ছড়িয়ে পড়লে আত্মরক্ষার্থে গাঁঢাকা দেন ভন্ড কবিরাজ সিরাজুল ইসলাম।

পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ইবি থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যেয়ে ওই নববধূকে উদ্ধার করেন এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ইবি থানায় নিয়ে আসেন। এদিকে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য তার ভাই জগত ডাক্তার বিভিন্ন রাজনৈতিক ও স্থানীয় প্রভাবশালীদের দিয়ে ভুক্তভোগী পরিবারের উপর চাপ প্রয়োগ করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় ভন্ড কবিরাজ সিরাজুল ইসলামের কঠোর শাস্তি দাবি করেন এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে ইবি থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান রতন জানান , আমরা প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের অভিযোগ পেয়েছি এবং ভুক্তভোগী ওই নববধূ বাদী হয়ে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার সত্যতা লক্ষ্যে ওই নববধূকে মেডিকেল পরীক্ষা করা হয়েছে । রিপোর্ট আসলে ঘটনার সত্যতা জানা যাবে। অভিযুক্ত আসামিকে আটকের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

Archives

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect. Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.