শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৬:৪৫ পূর্বাহ্ন

বাঙালির নষ্টামি রসিকতার পরিণাম !

মোঃ আসাদুজ্জামান সাগর / ২৭৩ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ২২ জুলাই, ২০২০, ১:২৯ অপরাহ্ন

বাংলায় একটা কথা আছে ইয়ার্কি করতে করতে মাথায় ওঠা। এর অর্থ হলো কাউকে নিয়ে বা কারো সাথে ইয়ার্কি ফাজলামো করতে করতে একসময় দ্বন্দ্বে জড়িয়ে যাওয়া। আমার মনে হয় সোশ্যাল মিডিয়ায় হিরো আলমকে নিয়ে ঠিক সেই অবস্থা হয়েছে। একজন পরিশ্রমী ডিস লাইন ব্যবসায়ী থেকে হিন্দি গানের সাথে মডেলিং করে উঠে আসা একটি ছেলে আজ এফডিসির নেতা!! সে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র জগতের একজন নায়ক মডেল ইত্যাদি ইত্যাদি!!

আপনারা কি চান হিরো আলম  বাংলাদেশের সিনেমার নায়ক হোক অথবা তার সিনেমা হলে গিয়ে দেখবেন অথবা তার নামে শত শত চলচ্চিত্র গড়ে উঠবে?? তার নামে চলচ্চিত্র ব্যবসা হবে?

আপনারা কি হিরো আলমের চলচ্চিত্র হলে গিয়ে দেখবেন? হিরো আলম বাংলাদেশের নায়ক।  তার সিনেমা বিভিন্ন পুরস্কার প্রতিযোগিতায় পাঠাবেন?

সত্যি কথা বলতে আমাদের দেশের চলচ্চিত্রের দর্শকদের রুচি এখনো এতটাও খারাপ হয়নি যে হিরো আলম এর সিনেমা হলে গিয়ে দেখবে অথবা টিভিতে চললে সাধারণ দর্শক পরিবারের সাথে বসে দীর্ঘ সময় সেই চলচ্চিত্র উপভোগ করবে! অথচ এই আমরা আপনারাই আলম কে  ভাইরাল করেছি। আজ হিরো আলম এফ ডি সির নেতা। মিছিল মানববন্ধন করছে। মিশা সওদাগর এর মত দীর্ঘজীবন চলচ্চিত্রের উৎসর্গীকৃত একজন প্রাণবন্ত অভিনেতাকে পদত্যাগ করার জন্য মিছিল করছে । হতে পারে মিশার ভুল আছে৷ তার পদত্যাগের জন্য আন্দোলন হতেই পারে। কিন্ত মিডিয়া শুধু হিরো আলমের বক্তব্য শুনতে চাচ্ছে এবং তা প্রচার করছে?

মিশা বা জায়েদ হিরো আলম কে চেনে না। অবশ্য চেনার কথাও না৷ যারা চেনে তারা কি পজেটিভ কোন কাজের জন্য চেনে?  নাকি তাকে নিয়ে মজা করার জন্য চেনে??  তাকে না চেনার অপরাধে মিশা, জায়েদ বিশাল অন্যায় করেছে। দর্শক আলম কে পক্ষ নিয়েছে হাসতে হাসতে৷

আপনাদের চাওয়া  বাংলাদেশের চলচ্চিত্র  হিরো আলমকে ভিত্তি করে গড়ে উঠবে?

যে দেশের এফডিসিতে তৈরি হয়েছে অসাধারণ সব সিনেমা সেই এফ ডি সি আজ কাদের হাতে? রাজ্জাক, আলমগীর, জসিম,মান্না, ওমর সানি, বাপ্পারাজ, সালমান শাহ, রিয়াজ, ফেরদৌস এর মতো সুদর্শন এবং সুঅভিনেতারা আমাদের চলচ্চিত্র কে সমৃদ্ধ করেছিল তাদের ভুলে অথচ  কি আজ হিরো আলমের চলচ্চিত্র দেখার জন্য প্রস্তুত আছি?

হিরো আলম কিছু ইমোশনাল কথাবার্তা বলেছেন, বাঙালি হৃদয় জয় করেছেন। আর তাকে নিয়ে কিছু বুদ্ধিজীবী তার পক্ষে অসাধারণ সব ফেসবুক পোস্ট দিয়েছেন। বিভিন্ন গ্রুপে পেজে তার পক্ষে বিশাল ভোট হয়। তাহলে আপনারা কেন হিরো আলম এর সিনেমা হলে গিয়ে দেখেন না?

মানুষ কালো হোক, খাটো হোক সেটা চলচ্চিত্রের নায়ক হওয়ার ক্ষেত্রে ডিপেন্ড করে না। হলিউডের অনেক নায়ক আছে  নিগ্রো, কালো কিন্তু তারা এক একজন সুপারস্টারস্টার। জাকি চ্যান, আমির খান খাটো হলেও তাদের অভিনয়, অ্যাকশন এর কারণে নামকরা সুপারস্টার। বাংলাদেশে জসিম মোটা হলেও তার অভিনয়ের কারণে এখনও 90 দশকের মানুষের মনে স্থায়ী দাগ কেটে নিয়েছে।কোন টিভিতে জসিমের সিনেমা হলে একবার দেখতে ইচ্ছে করে।

এসবের মধ্যে হিরো আলমের কোন গুন  আছে বলুন?? বাচনভঙ্গি, অভিনয়, স্মার্টনেস হওয়ার কোন যোগ্যতা আছে? অথচ আপনাদের ইয়ার্কি-ফাজলামি, ট্রল এর কারনে সে আজ এফডিসি নেতা হয়ে যাচ্ছে!! আগামী দিনের বাংলাদেশের চলচিত্রের প্রতিনিধি!!!

জায়েদ খান, বাপ্পী, সাইমন, আদনান আতিক এদের চলচ্চিত্র যেমন হলে কখনো চলে না ঠিক তেমনি হিরো আলমের সিনেমা ও দর্শক দেখে না। আমরা তাকে প্রমোট করে আজ বাংলাদেশের নায়ক বানিয়েছি। ট্রল করতে করতে এভাবে সবকিছু নষ্টদের অধিকারে দিবেন না। এফডিসিতে যদি ভাল সিনেমা না হয় তবে যাদুঘর বানিয়ে ফেলুন। তবুও এদের হাতে বাংলা চলচিত্র ধংশ হতে পারে না।

লেখকঃঃ

মোঃ আসাদুজ্জামান সাগর

শিক্ষক, আইন বিভাগ

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় । 

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

One response to “বাঙালির নষ্টামি রসিকতার পরিণাম !”

  1. Shahriar Nafis says:

    You are right

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

Archives

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect. Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.