শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৬:২০ পূর্বাহ্ন

কলারোয়াতে উৎসব মুখর পরিবেশে আমন ধান ঘরে তুলতে শুরু করেছে কৃষকরা-banglarrupkotha.com

তরিকুল ইসলাম,স্টাফ রিপোর্টার / ১০৩ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : সোমবার, ২ নভেম্বর, ২০২০, ৪:০১ অপরাহ্ন

ফসলের মাঠজুড়ে বাতাসে দুলছে কৃষকের সোনালি স্বপ্ন-আমন ধান। পোকার আক্রমণ আর নানা রোগবালাইয়ের পরও এবার আমনের বাম্পার ফলন পাচ্ছেন কৃষকরা।

সরেজমিনে দেখা গেছে,সাতহ্মীরা কলারোয়া উপজেলায় এখন ধানের মৌ মৌ গন্ধ। মাঠে মাঠে আনন্দে ধান কাটছে চাষিরা। আমনের বাম্পার ফলন আর নবান্নের আনন্দে মাতোয়ারা সবাই। উপজেলা জুড়ে আমন ধানের ভালো ফসলে আবারও আনন্দ-উল্লাসে মেতে উঠেছে কৃষক-কৃষাণীরা। চলতি সপ্তাহে পুরোদমে ধান কাটা ও মাড়াইয়ের কাজ শুরু হবে। তবে উপজেলার কিছু কিছু এলাকায় আগাম জাতের রোপণকৃত আমন ধান কাটা ও মাড়াইয়ের কাজ শুরু হয়েছে । ফসল কাটার উৎসবে এলাকার কৃষকরা ব্যস্ততম সময় পার করছে। একদিকে যেমন কৃষকরা ধান কেটে বাড়ির আঙ্গিনায় জড়ো করছেন অন্যদিকে গরু বা বোমা মিশিন দিয়ে একই সঙ্গে মাড়াই কাজ সম্পন্ন করবেন। মাড়াই শেষে বাতাসে ধান উড়িয়ে বাঁকি কাজটুকু সম্পন্ন করে গোলায় তোলার কাজে ব্যস্ত কৃষাণীরা। উপজেলার গ্রামে-গ্রামে ও মাঠের পর মাঠ সোনালি ফসল ঘরে তোলার উৎসব চলছে।

উপজেলা কৃষি অফিসের তথ্যমতে,কলারোয়া উপজেলায় মোট আবাদি জমির পরিমান ১৭,৫৯৫ হেক্টর। এ বছরে প্রায় ১২,৫০০ হেক্টর জমিতে আমন ধান চাষাবাদ করা হয়েছে। এ বছর যদি কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হয় তাহলে আমাদের উপজেলাতে মোট ধান উৎপাদন আশা করা যাচ্ছে ৬৮,৭৫০ মেট্রিক টন।

তিনি আরও বলেন, কলারোয়া উপজেলাতে যে লোক সংখ্যা আছে সেই অনুপাতে ধানের চাহিদা ৪২,৩০৪ মেট্রিক টন। যদি আবহাওয়া অনুকূলে থাকে তাহলে আমাদের চাহিদা মিটিয়ে ২৬,৪০৬ মেট্রিক টন ধান উদ্বৃত্ত বাইরে সাপ্লাই দিতে পারব বলে আশাবাদী আমারা। চলতি সপ্তাহে পুরোদমে আমন ধান কাটা শুরু হয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কলারোয়া উপজেলার গোয়ালচাতর,লাঙ্গলঝাড়া,মাহমুদপুর, কেঁড়াগাছী,সোনাবাড়িয়া,হেলাতলা,কয়লা,দামদারকার্টি, কুশুডাঙ্গা,বালিয়াডাঙ্গা,হরিনা,শাহাপুর, সিংঙ্গা,বোয়ালিয়া,বাকসা,জালালাবাদ, কাকডাঙ্গা,গদখালী,ঝিকরা,মুরালিকাটি, বসন্তপুর,বামনখালী,যুগীখালীসহ আরও অনেক গ্রামে কৃষকরা ধান কাটার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আর এর ভিতর যারা আগাম জাতের ধান চাষ করেছিলেন তারা ধান কাটা ও মাড়াইয়ের কাজ শুরু করেছেন।

উপজেলার দামোদর কাটি গ্রামের কৃষক আজগার আলীর সাথে কথা হলে তিনি জানান, এবার আমন ধানের ভালো ফলন হয়েছে। কিছু ধান কাটতে শুরু করেছি। আগামী সপ্তাহে পুরোদমে ধান কাটা শুরু হবে।আমার যদি কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগের মুখে না পরি ও বর্তমানে যে বাজার মূল্য আছে সেই বাজারমূল্য থাকতে থাকতে আমারা বিক্রয়ের কাজটি যদি সম্পন্ন করতে পারি তাহলে আশা করছি অন্যান্য বারের তুলনায় এবার বেশি লাভবান হব। কৃষিবিদ রফিকুল ইসলাম বলেন, এলাকায় আগাম জাতের রোপনকৃত ধান কাটা ও ঘরে তোলা শুরু হয়েছে। চলতি সপ্তাহে পুরোদমে ধান কাটা শুরু হবে। এ বছর উন্নত জাতের ধান চাষাবাদের ফলে এ বছর বাম্পার ফলন হয়েছে। তবে আশা করা হচ্ছে কৃষকেরা আশানুরূপ ফসল গোলায় তুলতে পারবে যদি আবহাওয়া অনুকূলে থাকে।এ বছর জামাইবাবু, বিনা৭, ধানিগোল্ড, বি আর ৭৫, গুটি স্বর্ণ, স্বর্ণ, ব্রি-৪৯, অ্যারাইজ ৭০০৬ সহ আরও বেশ কিছু জাতের ধান রোপন করা হয়েছিল।

বর্তমানে বাজারমূল্য পাচ্ছে অন্যবারের তুলনায় অনেক বেশি ও গো-খাদ্যের দাম পাচ্ছে অন্যবারের তুলনায় অনেক বেশি এতে করে কৃষকরা অনেক খুশি বলে আমাদেরকে জানিয়েছেন অনেক কৃষকরা ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

Archives

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect. Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.