রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০৫:৩০ পূর্বাহ্ন

করোনা ভাবনা-পুলক সরকার ; সম্পাদক ও প্রকাশক,দৈনিক বাংলার রূপকথা

পুলক সরকার,সম্পাদক ও প্রকাশক / ১৮৩ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : রবিবার, ১১ অক্টোবর, ২০২০, ২:১৩ অপরাহ্ন
পুলক সরকার,সম্পাদক ও প্রকাশক

সারা বিশ্বের মানুষ প্রতি মূহুর্তে আতঙ্কে আছে। চোখে দেখা যায় না অথচ বিশ্বযুদ্ধের থেকে শক্তিশালী, ভীতিকর মারনাস্ত্র ! মানুষ সাধারণত: কোন বিপদে বিপদগ্রস্থ মানুষের পাশে গিয়ে সাহায্য, সহযোগিতা ও সহানুভূতি জানায়। কিন্তু আমরা এমন একটি সময় পার করছি যেন মানুষ মানুষকে দূরে রাখছে। মা মারা গেলেও, সন্তান কাছে যেতে পারছে না, বাবা মারা গেলেও, সন্তান অসহায়ের মত ঘরে বন্দি হয়ে আছে, সন্তান মরন যন্ত্রনায় ছটফট করলেও  মা-বাবা সেই করুণ মূহুর্তে সন্তানের পাশে থাকতে পারছে না। একই পরিবারের মা-বাবা, সন্তান একত্রে মৃত্যুশয্যায় ছটফট করলেও একে অন্যকেকে সাহায্য করার জন্য পাশে থাকতে পারছে না। কি এক ভয়ানক পরিস্থিতি!

যে জিনিসটি চোখে দেখা যায় না অথচ এটি এমন এক শক্তিশালী জিনিস যে মানুষকে শুধু পরষ্পরের কাছ থেকে দূরেই রাখেনি, বরং অসহায় একজন মরনাপন্ন মানুষের কাছে এমন কি মৃত্যুর পর তার শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে পর্যন্ত অংশ নিতে দিচ্ছে না।

ইতিহাস থেকে অতীতের দুটি বিশ্বযুদ্ধের ঘটনা থেকে যা জানা যায়, তাতে করে মনে হয় যুদ্ধের সময় অন্তত মানুষের বিপদে, আহতদের পাশে মানুষ গিয়ে তাদের সেবা শুশ্রুষা করতে পারতো, শত্রপক্ষের চোখের অন্তরালে গোপনে গিয়ে তাদের পাশে দাঁড়াতে পারতো, কারো সহযোগিতা পাবার জন্য ছুটে যেত বন্ধুর কাছে, অসহায় মানুষকে দু’হাত বাড়িয়ে বুকে টেনে নিত আর আশ্রয় দিত। আহত বা নিহত হলে তাদের পাশে গিয়ে দুটো সান্তনার বাণী শোনাতে পারতো। হায়!প্রতিবেশী তো দুরের কথা, আমাদের নিজের পরমাত্মীয়ের পাশেও আমরা দাঁড়াতে পারছিনা।

বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের মরণছোবল থেকে কেউই রক্ষা পাচ্ছে না – ধনী-গরীব, কোটিপতি, ক্ষমতাবান, দরিদ্র, খেটে খাওয়া মানুষ, সবাই এর আওতাধীন।

ইতিমধ্যে যারা কোভিড-১৯ এ আক্রান্তদের সেবাকাজে জীবনবাজি রেখে নিয়োজিত আছেন তাদের মধ্যেও অনেকে মৃত্যুকে আলিঙ্গন করেছেন। অসংখ্য ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, স্বেচ্ছাসেবী ইতিমধ্যে প্রাণ দিয়েছেন এই মহৎ সেবাকাজের জন্য। আমরা তাদের কাছে মাথা নত করে তাদের মহৎ কাজের স্বীকৃতি জানাই-প্রনাম জানাই। যারা হাজার হাজার মৃতদের সৎকারের কাজে নিয়োজিত আছেন-তাদের জন্য ভুক্তভোগী পরিবারগুলো পক্ষে কৃতজ্ঞতা জানাই। আর বিশ্বের সমস্ত দেশের জনগণের জন্য ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করি-যেন তার মহান দয়াগুণে আমাদের পৃথিবী থেকে এই মরণব্যাধি দূর করে দেন।

পরিশেষে দেশের জনগণকে তথা সারা বিশ্বের জনগণকে বিনীতভাবে বলতে চাই,যারা সুস্থ্য আছেন তারা যেন রাষ্ট্রীয় ও সামাজিকভাবে ঘোষিত অবিরাম নিরাপত্তা নির্দেশ মেনে চলেন, নিজেরা সচেতন হয়ে সুস্থ্য থাকেন এবং অন্যদেরও সুস্থ্য থাকতে সহায়তা করেন। যে সব নির্দেশনা ইতিমধ্যে সরকার বা স্বাস্থ্যকর্মীগণ আমাদের দিয়েছেন তা মেনে চললে এই রোগ পরস্পর পরষ্পরের কাছ থেকে ছড়াতে পারবে না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

Archives

MonTueWedThuFriSatSun
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031    
       
       
       
      1
30      
   1234
       
282930    
       
  12345
6789101112
13141516171819
2728293031  
       

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect. Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.